531 বার প্রদর্শিত
"স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন (100 পয়েন্ট)  
পূনঃপ্রদর্শিত করেছেন

2 উত্তর

2 পছন্দ 1 টি অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (442 পয়েন্ট)  
পূনঃপ্রদর্শিত করেছেন
শরীরের যেকোনো  অঙ্গ কেনা বেচা অবৈধ। আর যদিও কেউ বেচে থাকে তাহলে সেই ব্যাক্তির উপর নির্ভর করবে। এটা বলা যাবে না কিডনির দাম কত।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (90 পয়েন্ট)  



কিডনি - এর দাম কত হবে সেটা অনির্ধারিত। এটা সাধারণত স্টক রেখে বিক্রি করা যায় না। যখন কেউ দান বা বিক্রি (কত টাকা সেটা বিক্রেতার নিজের বিষয়) করে, তখন এই অপারেশন করা হয়। শরীরের অঙ্গ প্রতঙ্গের কোন দাম হয় না, এগুলো কেনা বেচা সম্পুর্ন অবৈধ। 

কেউ দান করলেই সেটা ব্যবহার করা উচিৎ। আর ডাক্তার পরীক্ষা করে যদি বলে- শুধু কিডনি লাগবে, তাহলে কিডনি প্রতিস্থাপন করলে সেই রোগী স্বাভাবিক জীবন-যাপন করতে পারবে। 

বাংলাদেশের এটি সম্পূর্ণ বেআইনি। ইসলামে বিক্রি হারাম। 

কিডনির মালিক বা কোন অঙ্গের মালিক আপনি নন! 

কিডনি, চোখ ইত্যাদি শরীরের অঙ্গ প্রতঙ্গের মালিক আল্লাহ তা'আলা। সুতরাং, যে জিনিসের মালিক আমরা না তা দান বা বিক্রি করার অধিকার আমাদের নেই। কেউ যদি দান করে বিক্রি তবে হাসরের মাঠে তাকে ঐ দান করা অঙ্গ ছাড়াই পুনরায় জীবিত করা হবে। তাই ইসলামের দৃষ্টিতে জিবীত অবস্থায় বা মরনত্তর অঙ্গদান ও বিক্রি করা যায়েজ নাই। 

একটি কথা মনে রাখুন, একটি মানুষ বেঁচে  থাকে তার দুটো কিডনির উপর ভর করে। তাই কিডনি বিক্রয় করা থেকে বিরত থাকুন।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
1 উত্তর
23 মে "জীব বিজ্ঞান" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Siddique (3,669 পয়েন্ট)  
1 উত্তর

20,497 টি প্রশ্ন

19,682 টি উত্তর

2,746 টি মন্তব্য

1,244 জন সদস্য



প্রশ্ন অ্যানসারস এমন একটি প্ল্যাটফর্ম, যেখানে কমিউনিটির এই প্ল্যাটফর্মের সদস্যের মাধ্যমে আপনার প্রশ্নের উত্তর বা সমস্যার সমাধান পেতে পারেন এবং আপনি অন্য জনের প্রশ্নের উত্তর বা সমস্যার সমাধান দিতে পারবেন। মূলত এটি বাংলা ভাষাভাষীদের জন্য একটি প্রশ্নোত্তর ভিত্তিক কমিউনিটি। বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার পাশাপাশি অনলাইনে উন্মুক্ত তথ্যভান্ডার গড়ে তোলা আমাদের লক্ষ্য।

...