265 বার প্রদর্শিত
"পড়াশোনা" বিভাগে করেছেন (3,349 পয়েন্ট)  

1 উত্তর

1 টি পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
করেছেন (1,071 পয়েন্ট)  

ই-কার ব্যবহারের পাঁচটি নিয়ম  নিচে দেওয়া হলো—

১. বাংলা ভাষায় ব্যবহূত তৎসম শব্দের বানানে ই-কার ও ঈ-কার দুটিরই প্রয়োগ আছে। কিন্তু অ-তৎসম শব্দের বানানে ‘ই’ ধ্বনির ক্ষেত্রে সর্বত্র কেবল ই-কার ব্যবহার করা সংগত। যেমন—পাখি, চিংড়ি, কেরানি ইত্যাদি।

২.  মৌলিক ক্রিয়াবাচক শব্দ ও পদে ‘ই’ ধ্বনির সর্বত্রই ই-কার হয়ে থাকে। যেমন— চিমটানো, বিলানো  ইত্যাদি।

৩. বিশেষণসূচক ও স্ত্রীবাচক ‘ঈ’ প্রত্যয়ান্ত সংখ্যাবাচক শব্দগুলো ছাড়া সাধারণভাবে সংখ্যাবাচক শব্দের বানানে ই-কার হয়। যেমন—তিন, চল্লিশ, আশি ইত্যাদি।

৪. প্রাণিবাচক অ-তৎসম শব্দের শেষে ই-কার হয়। যেমন— প্রজাপতি, বুলবুলি, তিমি ইত্যাদি।

৫. স্ত্রীবাচক অ-তৎসম শব্দের শেষে ই-কার হয়।   যেমন—দিদি, মামি, নানি ইত্যাদি।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
12 এপ্রিল 2018 "মাধ্যমিক পড়াশোনা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন শামীম মাহমুদ (7,595 পয়েন্ট)  
1 উত্তর
12 এপ্রিল 2018 "মাধ্যমিক পড়াশোনা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন শামীম মাহমুদ (7,595 পয়েন্ট)  
1 উত্তর
1 উত্তর
03 নভেম্বর 2018 "কম্পিউটার" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন তা-সীন মাহমুদ জিদান (0 পয়েন্ট)  

20,638 টি প্রশ্ন

20,160 টি উত্তর

2,831 টি মন্তব্য

1,326 জন সদস্য



প্রশ্ন অ্যানসারস এমন একটি প্ল্যাটফর্ম, যেখানে কমিউনিটির এই প্ল্যাটফর্মের সদস্যের মাধ্যমে আপনার প্রশ্নের উত্তর বা সমস্যার সমাধান পেতে পারেন এবং আপনি অন্য জনের প্রশ্নের উত্তর বা সমস্যার সমাধান দিতে পারবেন। মূলত এটি বাংলা ভাষাভাষীদের জন্য একটি প্রশ্নোত্তর ভিত্তিক কমিউনিটি। বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার পাশাপাশি অনলাইনে উন্মুক্ত তথ্যভান্ডার গড়ে তোলা আমাদের লক্ষ্য।

...